মুশফিকের অধিনায়কত্ব নিয়ে কী ভাবছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা?

0

কেউ কেউ বলছে এই সফর শেষেই হয়ত মুশফিককে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে। বিসিবি সভাপতি আজ এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, মুশফিকের মন্তব্য দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে। কিন্তু যারা ক্রিকেটের চালিকাশক্তি, অর্থ্যাৎ ক্রিকেটপ্রেমীরা কী ভাবছেন?

গতকাল রবিবার ব্লুমফন্টেইন টেস্ট শেষে সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মুশফিকের বক্তব্য প্রকাশিত হয়েছিল কালের কণ্ঠ অনলাইনে। এটা ব্যক্তিগত খেলা না; আমি কেন নেতৃত্ব ছাড়ব: মুশফিক শিরোনামের নিউজটিতে মন্তব্য করেছেন অসংখ্য ক্রিকেটপ্রেমী। সেখান থেকে কিছু মন্তব্য তুলে ধরা হলো:

রিয়াদ হাসান শরীফ লিখেছেন, ‘সবাই কেন মুশিকে কথা বলছেন? মুশি কি বাকি ১০ জনকে বলেছিল খারাপ খেলতে? এটা আসলেই খারাপ ভাগ্য। হেরেছে একটু খারাব লাগবেই, তার পরেও বলবো আমরাই সেরা!!!’

জি.এম. মঈনুল কবীর হিরণ লিখেছেন, ‘ক্যাপ্টেনকে যদি ক্যাপ্টেনের দায়িত্ব পালন করতে না দেওয়া হয়, দলের কোচসহ উর্ধ্বতনরাই যদি সিদ্ধান্ত নেয় কে কোথায় ফিল্ডিং করবে, কে কখন বল করবে, কাকে কতো নম্বরে ব্যাটিং করানো হবে তাহলে সেই দলতো হারবেই।

ভুলে গেলে চলবে না, বাংলাদেশের ক্রিকেটে মুশফিকের অবদান কম নয়! বাংলাদেশ ক্রিকেটতো এখন একটু মাথা উঁচু করে দাড়িয়েছে, তাই এখানে রাজনীতি ঢুকে গেছে। আসলে মুশফিককে সরানোর অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে। ‘

আশরাফুল ইসলাম সুমন লিখেছেন, ‘টস জিতে ব্যাটিং নিলেই যে ভাল স্কোর করতে পারতো তার নিশ্চয়তা কে দিতে পারবে! ব্যাটসম্যান রা যদি তাদের দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়, তার দায়ও কি মুশফিককেই নিতে হবে নাকি!’

লিমন খান লিখেছেন, ‘ধোনির মত ক্যাপ্টেন যদি এক সিরিজ ব্যর্থতার কারণে অধিনায়কত্ব ছাড়তে পারে, তাহলে মুশফিককে অধিনাকত্ব ছাড়তে অসুবিধাটা কোথায়?

ধোনি ভারতীয় দলকে কী না দিয়েছে? ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়নস ট্রফি এনে দেওয়া ছাড়াও টেস্ট-ওয়ানডেতে ১ নম্বর দলে পরিনত করেছিলেন।

এমনকি তার মত ফিনিশার ক্রিকেট ইতিহাসে কে আছে? আর আমাদের ক্যাপ্টেন, থাক আর বললাম না….। ‘
আরেফিন মামুন লিখেছেন, ‘ক্যাপ্টেন মুশফিককে পরিপূর্ণভাবে কারও হস্তক্ষেপ ছাড়া তার নিজের মত করে দায়িত্ব পালন করতে দেয়া হোক; সব ঠিক হয়ে যাবে।

কোচের অনৈতিক হস্তক্ষেপ কখনই কাম্য নয়। আর যদি পুতুল ক্যাপ্টেনই তাকে থাকতে হয়, তবে মুশফিকেরর উচিত ওদের কাছে দায়িত্ব ছেড়ে দেয়া। যদিও এখনো মুশফিকের সত্যিকারের বিকল্প কেউ নাই…। ‘

সেতু চাকমা লিখেছেন, ‘মুশফিকের ওপর কেন অযথা প্রেসার ক্রিয়েট করা হচ্ছে? তবে হ্যাঁ, তার আবেগকে কন্ট্রোল করতে হবে। ‘

সোহাগ হাদী লিখেছেন, ‘ব্যাটসম্যান হিসেবে মুশফিককে নিয়ে কোনো সমালোচনা নেই। ব্যাটসম্যান হিসেবে সে দারুণ। কিন্তু বহু আগেই এ কথা প্রমাণিত যে, মুশফিক যে ধরনের রক্ষণাত্মক ও বাজে অধিনায়কত্ব করে থাকে, তাতে বাংলাদেশকে অন্তত টেস্টে জিম্বাবুয়ের সঙ্গেও কষ্ট করে জিততে হবে। ক্রিকেট সম্পূর্ণই মানসিক শক্তিমত্তার খেলা।

মুশফিক প্রায় সম্পূর্ণ ব্যাটিং পিচেও প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময়ই মূলত বাংলাদেশ মানসিকভাবে পিছিয়ে পড়েছিল। ওদিকে আফ্রিকা তা বাড়তি আত্মবিশ্বাস পেয়ে যায়। মুশফিকের অধিনায়কত্ব এক কথায় জঘন্য। ‘

ইমতিয়াজ মাহমুদ তানজিম লিখেছেন, ‘একদিকে বাংলাদেশের কিছু মানুষ মুশফিকের বদনাম করছে আরেক দিকে সভাপতি-কোচ। যার হাত ধরে বাংলাদেশের টেস্ট খেলা এতটা এগিয়ে গেলো আজ মাত্র একটা সিরিজ হেরে সে সবার কাছে অবহেলিত! বাংলাদেশের একজন অধিনায়ক হিসেবে তাকে আগেও প্রাপ্য সম্মানটুকু দেওয়া হয়নি।

একজন অধিনায়ক কোন জায়গায় ফিল্ডিং করবে সেটা যদি কোচ বলে দেয় তাহলে তাহলে আর অধিনায়ক থাকার দরকার কী?……আর যদি মুশিকে ক্যাপ্টেন থেকে সরায় তাহলে বাংলাদেশ ক্রিকেটে সবচেয়ে বড় অবহেলার নাম হবে মুশফিকুর রহিম। ‘

Share.

Leave A Reply