প্রবাসীরা সাবধান… ইমু লাইভের নামে কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি চক্র..!

0

ইমু লাইভের নামে কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে… আধুনিকতার ছোঁয়ায় আমরা ভিডিওতে কথা বলি। ভিডিও কলে কথা বলার অনেক গুলো মাধ্যম রয়েছে তার মধ্যে ইমু অন্যতম। ইন্টারনেট স্পীড কম থাকলেও ইমুতে কথা বলা যায়। বিশেষ করে বিদেশী ভাই বোনেরা তাদের স্বজনদের সাথে ইমু দিয়েই কথা বলে থাকে। তাই এর জনপ্রিয়তা বাপক।

আর ইমুকেই ব্যবহার করে এক শ্রেণীর মেয়েরা লক্ষ লক্ষ টাকা পয়সা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রবাসি ভাইদের কাছ থেকে, দেশে বসবাসরত ভাইদের ঠকার দৃষ্টান্তও কম নয়।

এর পিছনে কাজ করছে কিছু ধোঁকাবাজ সুন্দরী মেয়েরা। তারা প্রবাসীদের সাথে প্রেমের অভিনয় করে হাতিয়ে নেয় সর্বস্ব। সম্প্রতি বেস কিছু ঘটনা সংবাদ মাধ্যমে উঠে এসেছে।

যেভাবে ইমু লাইভের নামে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি চক্র। এসব মেয়েদের থেকে সবাই সাবধান।-ভিডিওটি পোষ্টের নিচে দেয়া আছে। সরাসরি ভিডিওটি দেখতে স্ক্রল করে নিচে চলে যানঃ

কেউ কেউ আবার টাকার বিনিময়ে ভিডিও কলে দেহ বিকিয়ে দিচ্ছে।যাকে এক কথায় আমরা বলি ফোন সেক্স। টাকার অনুপাতে ভিডিও কলে খোলামেলা কথপকথন। টাকার পরিমান বেশি হলে সম্পূর্ণ উলঙ্গ হতেও দ্বিধা নেই তাদের। যাকে বলা যায় আধুনিক যৌন ব্যাবশা।

এতদিন তো শুধু শুনেছেন যৌন পল্লিতে গিয়ে, এখন এটাই ডিজিটাল। টাকার পয়সার লেনদেনও হয় আধুনিক ভাবে-বিকাশ, ব্যাংক। একটা বিশ্বাসযোগ্য মাধ্যম থেকে জানা গেছে- এসব ফাঁদপাতা মেয়েরা ১ ঘণ্টা কথা বলতে ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত নিয়ে থাকে।

আবার সুন্দরী ও উলঙ্গ কমবেশি হওয়া নিয়ে টাকার পরিমাণও ওঠানামা করে। আর এই ফাদে পা বারায় বেশিরভাগ প্রবাসিরা। এক সময় তাদের সর্বস্ব লুটে নেয়।

এই ফাঁদে পা বাড়ানো দেশিও লোকসংখ্যাও নেহায়েত কম নয়। অনেকে আবার ব্লাক মেইলের ও শিকার হন। কিন্তু লোক-লজ্জার ভয়ে কাউকে কিছু বলতেও পারেন না। ইন্টারনেট খুললেই একটা না একটা ভাইরাল ভিডিও পাওয়া যায়।

Share.